গারনিশি অর্ডার ( Garnishee Order ) 


গারনিশি অর্ডার বা আদেশ কি কত প্রকার ও কি কি
গারনিশি অর্ডার বা আদেশ কি কত প্রকার ও কি কি

ইংরেজি ' Garnishee ' শব্দটি ল্যাটিন শব্দ ' Gamine থেকে উদ্ভব । গারনিশি অর্ডার মূলত আদালত কর্তৃক ব্যাংকের ওপর প্রদত্ত একটি আদেশ। 


কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান অপর কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাব বন্ধ করার উদ্দেশ্যে আদালতের মাধ্যমে এ আদেশ জারি করে । ব্যাংকের গ্রাহক অনেক সময় তৃতীয় কোনো ব্যক্তির কাছ থেকে ঋণ গ্রহণ করে ঋণের অর্থ পরিশোধে ব্যর্থ হয় । এ অবস্থায় গ্রাহক যদি ঋণ চুক্তির শর্ত ভঙ্গ করে , তবে ঋণদাতা আদালতের শরণাপন্ন হতে পারে । আদালত দাবি যৌক্তিক মনে করলে ঋণদাতার স্বার্থরক্ষার্থে ব্যাংককে আমানতকারীর অর্থ পরিশোধ করতে নিষেধ করতে পারে । 


আদালত যে আদেশের মাধ্যমে গ্রাহকের অর্থ পরিশোধে ব্যাংকের প্রতি এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে তাকেই গারনিশি আদেশ বলে । গারনিশি অর্ডারে তিনটি পক্ষ থাকে । প্রথম পক্ষ একজন পাওনাদার ( Creditor ) , দ্বিতীয় পক্ষ দেনাদার ( Debtor ) এবং তৃতীয় পক্ষ ব্যাংক । 

আরো পড়ুন 

আদালতের কাছে যদি প্রমাণিত হয় , দ্বিতীয় পক্ষ প্রথম পক্ষের কাছে দায়গ্রস্ত , তাহলে ব্যাংকের কাছে রক্ষিত দ্বিতীয় * পক্ষের অর্থ - সম্পদের ওপর দাবি প্রতিষ্ঠার জন্য আদালত দ্বিতীয় পক্ষের ব্যাংক হিসাব বন্ধ করার নির্দেশ দেয় । আদালত ব্যাংকের ওপর আদেশ জারির পর থেকে প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত মঝে ঐ হিসাবে কোনো লেনদেন করতে পারবে না । 


গারনিশি অর্ডার দু'ধরনের হয় । যথাঃ 


১. সীমাহীন আদেশ : মক্কেলের সম্পূর্ণ টাকার ওপর আদেশ জারি করা হলে তাকে সীমাহীন গারনিশি অর্ডার বলা হয় । 


২. সীমাবদ্ধ আদেশ : নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকার ওপর আদেশ জারি করা হলে তাকে সীমাবদ্ধ গারনিশি অর্ডার বলা হয় । 


উদাহরণের সাহায্যে বিষয়টি উপস্থাপন করা হলো । ধরি , মি . সুমন মি . করিমের কাছে ৫,০০,০০০ টাকা পায় । মি . সুমন জানতে পেরেছে যে , মি . করিমের সিটি ব্যাংকের হিসাবে ৫,০০,০০০ টাকা জমা থাকা সত্ত্বেও তিনি তার ঋণ পরিশোধ করছেন না । এমতাবস্থায় মি . সুমন আদালতের কাছে গারনিশি আদেশের জন্য আবেদন করলে সিটি ব্যাংক মি করিমের হিসাব জব্দ করবে । 


গারনিশি অর্ডার কেন দেওয়া হয়.. ? 


কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাব বন্ধ করার জন্য গারনিশি অর্ডার প্রদান করা হয় । অর্থাৎ আদালত দায়গ্রস্ত কোনো ব্যক্তির দায় পরিশোধের অক্ষমতাকে বিবেচনায় রেখে তার পাওনাদারদের আর্থিক ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করার জন্য এরূপ অর্ডার প্রদান করে । 

আরো পড়ুনঃ

ব্যাংকার ও গ্রাহকের সম্পর্কের পরিসমাপ্তি (Termination of Banker - Customer Relationship ) 


ব্যাংক হিসাব খোলার মধ্য দিয়ে ব্যাংকার এবং গ্রাহকের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপিত হলেও বেশকিছু কারনে অবশান ঘটে । 


গারনিশি অর্ডাের বা আদেশ ৭ প্রকার :

নিচে আলোচনা করা হলোঃ


১। গ্রাহকের নিজস্ব সিদ্ধান্ত ( Decision by the customer himself ) : গ্রাহক ব্যাংকের ওপর আস্থা হারিয়ে ফেললে , কিংবা অন্য কোনো কারণে ব্যাংকের সাথে লেনদেন চালু না রাখার সিদ্ধান্ত নিলে ব্যাংকার ও গ্রাহক সম্পর্কে পরিসমাপ্তি ঘটে ।


২। মৃত্যুজনিত কারণে ( On the death of the customer ) : ব্যাংক গ্রাহকের মৃত্যুজনিত কারণে হিসাব বন্ধ করে দেয় । ফলে ব্যাংক ও গ্রাহকের সম্পর্ক বিলুপ্ত হয় । 


৩। গ্রাহক আদালত কর্তৃক দেউলিয়া ঘোষিত হলে ( Declared bankrupt by the court ) : আদালত কর্তৃক কোনো ব্যক্তি দেউলিয়া ঘোষিত হলে আইনানুগতভাবে তার কোনো চুক্তি সম্পাদনের যোগ্যতা থাকে না । তাই ব্যাংকের কোনো গ্রাহক দেউলিয়া ঘোষিত হলে সঙ্গে সঙ্গেই সেই গ্রাহকের হিসাব বন্ধ হয়ে ব্যাংকার ও গ্রাহকের সম্পর্কের পরিসমাপ্তি ঘটে । 


৪। গ্রাহক মানসিক ভারসাম্য হারালে বা পাগল হলে ( Going mentally imbalanced or insane ) : ব্যাংকের কোনো গ্রাহক মানসিক ভারসাম্য হারালে অথবা পাগল হয়ে গেলে ব্যাংক ঐ গ্রাহকের হিসাব বন্ধ করে দেয় । অবশ্য এখানে উল্লেখ্য যে , নির্ভরযোগ্য তথ্যপ্রমাণের ভিত্তিতেই ব্যাংক এ ধরনের পদক্ষেপ নেয় । তবে গ্রাহক সুস্থ হয়ে উঠলে ব্যাংকার ও গ্রাহক সম্পর্ক পুনঃস্থাপিত হয় । 


৫। দীর্ঘকালীন লেনদেন চালু না রাখা ( No transaction for long time ) : কোনো গ্রাহক হিসাব খুলে যদি হিসাবে লেনদেন চালু না রাখেন , তবে দীর্ঘ সময় ধরে লেনদেন না করার কারণে ব্যাংক ঐ গ্রাহকের হিসাব বন্ধ করে দেয় । 


৬। সীমাহীন গারনিশি অর্ডার জারি করা হলে ( Unlimited garnishee order ) : আদালত কর্তৃক কোনো ব্যক্তির ব্যাংক হিসাব ক্রোক করার উদ্দেশ্যে ব্যাংকের ওপর গারনিশি অর্ডার জারি করা হলে উক্ত গ্রাহকের হিসাব বন্ধ করে দিতে ব্যাংক বাধ্য । অবশ্য এ আদেশ প্রত্যাহার করা হলে গ্রাহক ঐ হিসাবে পুনরায় লেনদেন করতে পারবেন । সেক্ষত্রে ব্যাংকার ও গ্রাহক সম্পর্ক পুনঃস্থাপিত হয় । 


৭। সম্পূর্ণ জের স্থানান্তর ( Transfer of whole amount of balance ) : গ্রাহক তার হিসাবের সমুদয় অংশ অন্য কোনো ব্যক্তির হিসাবে স্থানান্তর করার জন্য ব্যাংকের ওপর আদেশ জারি করলে গ্রাহকের হিসাব বন্ধ হয়ে ব্যাংক ও গ্রাহকের সম্পর্কের পরিসমাপ্তি ঘটে ।

Related Keyword 

গারনিশি অর্ডার কি..? 

গারনিশি অর্ডার বা আদেশ কি ও কত প্রকার কি কি..? 

গারনিশি আদেশ কত প্রকার..?

বাংলাদেশের গারনিশি আদেশ কেমন..? 


ধন্যবাদ আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করার জন্য 



Previous Post Next Post