চেইন ব্যাংক ( Chain Banking)


চেইন ব্যাংক এর বৈশিষ্ট্য সুবিধা ও অসুবিধা
চেইন ব্যাংক এর বৈশিষ্ট্য সুবিধা ও অসুবিধা  


চেইন ব্যাংক যৌথ মালিকানায় গঠিত হয়ে নিজ নিজ সত্তা অক্ষুণ্ন রেখে ব্যাংকিং কাজ পরিচালনা করে । এ ধরনের ব্যাংকিং ব্যবস্থার মূল উদ্দেশ্য পারস্পরিক উন্নতি সাধন । এ ব্যবস্থার অধীনে পরিচালিত ব্যাংকগুলোর কার্য সম্পাদন ও নিয়ন্ত্রণ তুলনামূলক সহজ হয় ।

D. G. Luckett- এর মতে , “ একই ব্যক্তি যখন দুই বা তার অধিক ব্যাংকের মালিকানা লাভ করে থাকে , তখন একটি চেইন ব্যাংক গঠিত হয় । " ( A banking chain is held together through ownership of two or more banks by the same individual . )

M. C. Vaish- এর মতে , “ চেইন ব্যাংক হচ্ছে এমন এক ধরনের ব্যাংকিং পদ্ধতি যেখানে দুই বা তার অধিক ব্যাংক কোনো ব্যক্তি বা কোনো পরিবারের সদস্যদের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় । " ( The chain banking system is the control of two or more banking companies by a single person , by members of the same family . )


• চেইন ব্যাংক - এর বৈশিষ্ট্য ( Features of Chain Bank ) :

নিচে চেইন ব্যাংক - এর কিছু বৈশিষ্ট্য তুলে ধরা হলো ১. স্বাধীন সভা ( Independent entity ) : চেইন ব্যাংকিং ব্যবস্থায় প্রতিটি ব্যাংকই স্বাধীনভাবে পরিচালিত হয় । আইনগতভাবে ব্যাংকগুলো একটি অপরটি থেকে আলাদা । ব্যাংক ব্যবসায়ে কোনো জটিলতা সৃষ্টি হলে ব্যাংকগুলো একটি অপরটির বিরুদ্ধে মামলা করতে পারবে ।

২. উদ্দেশ্য ( Objectives ) : চেইন ব্যাংকিং ব্যবস্থায় পরিচালিত ব্যাংকগুলো পারস্পরিক উন্নতি সাধনের লক্ষ্যে কাজ করে । কার্য সম্পাদনে সফলতা , দক্ষতা , মিতব্যয়িতা ইত্যাদি ক্ষেত্রে উন্নয়ন করা এ ধরনের ব্যাংকিং ব্যবস্থার উদ্দেশ্য ।

৩ . পৃথক নাম ( Seperate name ) : চেইন ব্যাংকিং ব্যবস্থায় নিয়ন্ত্রিত ব্যাংকগুলো নিজ নামে পরিচালিত হয় । ব্যাংকগুলো আইনগতভাবে স্বাধীন থেকে নিজ নামে ব্যবসায় পরিচালনা করতে পারে ।

8. দ্রুত কার্য সম্পাদন ( Quick performance ) : এ ধরনের ব্যাংকিং ব্যবস্থায় ব্যাংকের সেবার মান উন্নত হয় । কার্য পরিচালনার গতি ত্বরান্বিত হয় ।

৫. প্রতিযোগিতা ( Competition ) : চেইন ব্যাংকিং ব্যবস্থায় প্রতিটি ব্যাংক নিজ নামে স্বাধীন সত্তা নিয়ে পরিচালিত হয় । তাই ব্যাংকগুলোর মধ্যে মুনাফা অর্জনের ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতাও বেশি ।

• চেইন ব্যাংক - এর সুবিধা ( Advantages of Chain Banking ) :


চেইন ব্যাংক এর বৈশিষ্ট্য সুবিধা ও অসুবিধা
চেইন ব্যাংক এর বৈশিষ্ট্য সুবিধা ও অসুবিধা 


১. দক্ষ ব্যবস্থাপনা ( Efficient management ) : চেইন ব্যাংকিং - এর ক্ষেত্রে দক্ষ ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা সম্ভব হয় । ফলে ব্যাংকের মুনাফা অর্জনও সহজ হয় ।

২. স্থানীয় চাহিদা ( Meeting local demands ) : ঋণের স্থানীয় চাহিদা মেটাতে চেইন ব্যাংকিং আদর্শ ব্যাংকিং ব্যবস্থা হিসেবে কাজ করে । এর মাধ্যমে অর্থায়নের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হয় ।

৩ . খরচ ( Less expensive ) : চেইন ব্যাংকিং পদ্ধতি পরিচালনার ক্ষেত্রে খরচের পরিমাণ কম । এটিকে মিতব্যয়ী ব্যাংকিং পদ্ধতিও বলা হয় ।
8. ঝুঁকির স্বল্পতা ( Less risk ) : এ ব্যাংকিং পদ্ধতিতে ঝুঁকির পরিমাণ অনেক কম । ফলে সর্বক্ষেত্রেই ঝুঁকি এড়ানো সহজ হয় ।

৫ . অধিক মুনাফা ( More profit ) : এরূপ ব্যাংকিং ব্যবস্থায় ঋণদান ক্ষমতা বেড়ে যায় । একই সাথে বিনিয়োগের পরিমাণও বাড়ে । ফলে সদস্য ব্যাংকগুলো অধিক মুনাফা অর্জনে সক্ষম হয় ।

→ চেইন ব্যাংক - এর অসুবিধা ( Disadvantages of Chain Bank ) 

১. সামাজিক কল্যাণ ( Social welfare ) : সামাজিক কল্যাণমূলক কোনো ক্ষেত্রে এ ব্যাংকিং পদ্ধতি কোনো অবদান রাখে না ।

২. ব্যবস্থাপনায় জটিলতা ( Management complexity ) : এ ব্যাংকিং পদ্ধতিতে এক বা একাধিক ব্যক্তি মিলে দুই বা তার অধিক ব্যাংক ব্যবস্থাপনা নিয়ন্ত্রণ করে । তাই ব্যবস্থাপনার প্রতিটি স্তরে কর্তৃত্বপরায়ণ অবস্থা বিদ্যমান । এটি অনেক প্রতিষ্ঠানের জন্য সুফল নাও বয়ে আনতে পারে ।

৩. মূল উদ্দেশ্য ব্যাহত ( Hampering main objective ) : এ ব্যাংক ব্যবস্থায় সদস্য ব্যাংকগুলো অনেক সময় নিজ নিজ স্বার্থের প্রতি বেশি সচেষ্ট থাকে । এর ফলে এ ব্যাংকিং - এর মূল উদ্দেশ্য ( পারস্পরিক উন্নতি সাধন ) ব্যাহত
৪. একচেটিয়া প্রভাব ( Monopoly effect ) : চেইন ব্যাংকিং ব্যবস্থায় সদস্য সংখ্যা বেশি হয়ে গেলে এরা একচেটিয়া ব্যবসায় করার সুযোগ পায় ।

Related Keyword
চেইন ব্যাংকের বৈশিষ্ট্য
চেইন ব্যাংকের মূখ্য উদ্দেশ্য কি
কয়েকটি চেইন ব্যাংকের নাম
চেইন ব্যাংকের সুবিধা
চেইন ব্যাংকের অসুবিধা
গ্রুপ ব্যাংকিং কি
একক ব্যাংকিং কি
chain banking 
Previous Post Next Post